গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
কাস্টম হাউস, বেনাপোল
যশোর

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

বেনাপোলে সাড়ে বার কোটি টাকা মূল্যের আড়াই টন ভায়াগ্রার সর্ববৃহৎ চালান আটক

ভায়াগ্রা পাউডারের বৃহত্তম চালান বেনাপোলে আটক হয়েছে। বাংলাদেশ ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরীক্ষা প্রতিবেদনে এটি Sildenafil Citrate (ভায়াগ্রা) প্রমাণিত। গত মাসে একইভাবে ২০০ কেজি পাউডার ভায়াগ্রা আটক করেছিল বেনাপোল কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এবারের চালান আকারে বিশাল, বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম। এত বিপুল পরিমাণে ভয়ানক ক্ষতিকারক ভায়াগ্রা বাংলাদেশে প্রবেশ গভীর উদ্বেগের। একটি সংঘবদ্ধ চক্র বাংলাদেশকে ভায়াগ্রা পাউডার চোরাচালানের রুট হিসেবে ব্যবহার করছে কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বিজিবিও উদ্বিগ্ন এবং বিজিবির মাধ্যমে বিএসএফ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। অন্যদিকে ভায়াগ্রার এ চালানটি তোড়জোড় করে খালাসের জন্য একটি শক্তিশালী মহল অপপ্রভাব খাটাতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। গোপন সংবাদদাতার নিরাপত্তাসহ সার্বিক বিষয়েও কাস্টম হাউস উদ্বিগ্ন।

গোপন সংবাদ ঃ WCOথেকে বিশ্বব্যাপী মাদক পাচার বিষয়ক সতর্কবার্তার সূত্রে গোপন সংবাদদাতা নিয়োগ করা হয়। ভারত হতে মিথ্যা ঘোষণায় বৈধ পণ্যের আড়ালে ভায়াগ্রা জাতীয় মাদক বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করবে এমন আগাম গোপন সংবাদ কয়েক মাস আগেই গোপন সংবাদদাতার (paid source) সূত্রে পাওয়া যায়। ফলে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হয়। কেমিক্যাল জাতীয় পণ্যচালানে রয়েছে বিশেষ নজরদারি।

আটক চালানের বিবরণ ঃ
আমদানিকারকের নাম ও ঠিকানা-মেসার্স বায়েজিদ এন্টারপ্রাইজ, ৪৭/সি মিটফোর্ড রোড, ঢাকা।
রপ্তানিকারকের নাম ও ঠিকানা-আই বি ট্রেডার্স, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত
সিএন্ডএফ এজেন্ট ও ঠিকানা-সাইনী শিপিং সার্ভিসেস, বেনাপোল
এল সি নং ও তারিখ-০০০০৯৪৬১৯০১০৩৪২, তারিখ ঃ ২১/০৫/১৯
মেনিফেস্ট নং ও তারিখ-১৯১৯৩/১, তারিখঃ ২৬/০৫/১৯
বি/ ই নং ও তারিখ-সি-৩৬৪৯৬, ২৯/০৫/১৯
ঘোষিত পণ্য-সোডিয়াম স্টার্চ গ্লাইকোলেট
ঘোষিত ও পরীক্ষায় প্রাপ্ত পরিমাণ-২৫০০ কেজি
ঘোষিত এইচএসকোড-৩৫০৫.১০.০০
প্রকৃত এইচ এস কোড-২৯৩৫.৯০.০০
ঘোষিত মূল্য-৩৫০০ মাঃ ডলার
প্রকৃত মূল্য-১২,৫০,০০,০০০ টাকা (বার কোটি পঞ্চাশ লক্ষ টাকা)

অপচেষ্টার ধরন ঃ ঘোষণা দেওয়া হয় সোডিয়াম স্টার্চ গ্লাইকোলেট। রাসায়নিক পরীক্ষায় পাওয়া যায় ভায়াগ্রা।

আমদানি দলিলাদি যাচাই ঃ মিথ্যা ঘোষণার আগাম গোপন সংবাদ থাকায় আমদানিকারকের দাখিলকৃত আমদানি দলিলাদি অতি সতর্কতার সাথে যাচাই করা হয়। আমদানিকারক কোন ঔষধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান না হওয়া সত্তে¡ও ঔষধের কাঁচামাল সোডিয়াম স্টার্চ গ্লাইকোলেট আমদানির ঘোষণায় সন্দেহ কিছুটা ঘনীভ‚ত হয়।

পণ্যের কায়িক পরীক্ষণ ঃ সাদা পাউডার জাতীয় পণ্য প্রাপ্তি। ঘোষিত পরিমাণের কোন গরমিল পাওয়া যায়নি।

রমন স্পেক্ট্রোমিটারে পরীক্ষণঃ এ দপ্তরের কেমিক্যাল ল্যাবে রক্ষিত রমন স্পেক্ট্রোমিটারে (WCO থেকে অনুদানপ্রাপ্ত) এ পণ্যের প্রতিনিধিত্বশীল নমূনার রাসায়নিক পরীক্ষা করা হয়। আকস্মিকভাবে এ মেশিন ভায়াগ্রা (Sildenafil Citrate) প্রদর্শন করে । বারবার একই ফলাফল। ফলে মিথ্যা ঘোষণা প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত।

বন্দরের নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ ঃ রমন স্পেক্ট্রোমিটারে ভায়াগ্রা হিসেবে সনাক্ত হওয়ায় পণ্য যাতে কোনভাবে পাচার হতে না পারে সেজন্য বন্দরের সংশ্লিষ্ট শেড ইন চার্জকে নজরদারি বাড়ানোর জন্য চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে।

রাসায়নিক পরীক্ষণ ঃ সন্ধিগ্ধ পণ্যের প্রতিনিধিত্বমূলক নমূনা সংগ্রহ ও সীলগালা করে একজন কর্মকর্তাকে দিয়ে বাইরের ৪ (চার) টি ল্যাবে প্রেরণ করা হয়। ফলে পণ্যটি সর্বমোট ৫ (পাঁচ) বার রাসায়নিক পরীক্ষা করা হয়।
ক. কাস্টমস ল্যাব ঃ এ দপ্তরের নিজস্ব ল্যাবে পণ্যের প্রতিনিধিত্বশীল নমুনার রাসায়নিক পরীক্ষণে Caution সহ Sildenafil Citrate /Viagra হিসেবে পাওয়া যায়।

খ. ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর ঃ পণ্যের প্রতিনিধিত্বশীল নমুনা ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে প্রেরণ করা হলে পণ্যটিকে Sildenafil Citrate হিসেবে সনাক্ত করে প্রতিবেদন প্রদান করা হয়।

গ. বিসিএসআইআর ঃ বিসিএসআইআর এ প্রেরিত নমুনাকে খুবই অপ্রত্যাশিতভাবে “The sample chemically known sodium starch glycolate. It can be used as industrial thickener and as pharmaceutical excipient (disintegrant, a suspending agent, a gelling agent) in pharmamaceutical industries.” হিসেবে প্রতিবেদন প্রদান করে। বিসিএসআইআর থেকে এধরনের ঘোষণানুগ প্রতিবেদন জন স্বাস্থ্য ও দেশের রাজ¯স্বের জন্য হুমকি¯স্বরূপ। গোপন সংবাদাতার মতে রিপোর্টে যোগসাজস হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।
ঘ. বুয়েট ঃ প্রেরিত নমুনা পরীক্ষা করে বুয়েটের প্রতিবেদনে “The exact names of the constituents can not be determined by simple experimentations such as gravimetric or volumetric analyses. It is not possible to mention the application of the sample as it could not be identified properly.” প্রতিবেদনের ভাষ্যমতে বুয়েট পণ্যটিকে সনাক্ত করতে ব্যর্থ হয়। দৃশ্যত, এটি অবিশ্বাস।
ঙ. কুয়েট ঃ পণ্যের নমুনা অন্য কোন ল্যাবে পাঠানোর জন্য গোপন সংবাদদাতার জোরদার তাগিদ। এ দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শে এক কর্মকর্তাকে নমূনা হাতে দিয়ে কুয়েটের রসায়ন বিভাগে প্রেরণ করা হয়। কুয়েট দ্রুততম সময়ে মাত্র তিন দিনে প্রতিবেদনে পণ্যটিকে Sildenafil Citrate হিসেবে প্রত্যয়ন করে। ¯ ল্পতম সময়ে প্রত্যাশিত ফলাফল। ধন্যবাদ কুয়েটের রসায়ন বিভাগকে।

বাংলাদেশকে কেন? অপঘোষণায় আমদানি করে বাংলাদেশ থেকে অন্য দেশে রপ্তানি করার অপচেষ্টা থাকতে পারে। দেশের সীমান্তবর্তী সকল শুল্ক স্টেশনে সক্ষম ল্যাব না থাকাও এ ধরনের পণ্য পাচারে বাংলাদেশকে বাছাই করার অন্যতম কারণ।

ঔষধ প্রশাসনের প্রত্যক্ষণ ঃ Sildenafil Citrate এর ব্যবহার ঃ মূলত ঔষধ উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠানে কিছু বিশেষ ঔষধের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তবে ইদানিংকালে কিছু কোমল পাণীয় উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কোমল পাণীয় উৎপাদনে এ পণ্য ব্যবহার করছে এমন অভিযোগ আছে মর্মে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে অভিযোগ আছে বলে জানা যায়। এছাড়া অপঘোষণায় আনীত উক্ত পণ্যটি ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক যৌন উত্তেজক ঔষধ তৈরিতেও ব্যবহার হয়।
পদক্ষেপঃ
১। অসত্য ঘোষণার দায়ে আমদানিকারককে কারণ দর্শানো নোটিশ জারী করা হয়েছে;
২। সিএন্ডএফ এজেন্ট সাইনি শিপিং সার্ভিসেস, বেনাপোল এর লাইসেন্স সাময়িক বাতিল করা হয়েছে;
৩। অধিকতর তদন্তের জন্য যুগ্ম কমিশনারের নেতৃত্বে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে;
৪। তদন্তে সংঘাত ও অপরাধের মাত্রা বিবেচনায় জড়িত অপরাধীদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়েরের পদক্ষেপ নেয়া হবে;
৫। চালানটি আটক করে বন্দরের নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে যা পরবর্তীতে আইনানুগভাবে নিষ্পত্তি করা হবে;
৬। সংস্থা প্রধান সিনিয়র সচিব, আইআরডি জনাব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, এনডিসি, সদস্য জনাব খন্দকার আমিনুর রহমান ও সদস্য শুল্ক নীতি জনাব সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া মহোদয়কে অবহিত করা হয়েছে;
৭। পণ্যের অসত্য বর্ণনা প্রদান করে অত্যন্ত সংবেদনশীল পণ্য পাচারের বিষয়টি তদন্তপূর্বক রপ্তানিকারক আইবি ট্রেডার্স, পশ্চিম বঙ্গ, ভারত এর বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রিন্সিপাল কমিশনার অব কাস্টমস, পশ্চিম বঙ্গ, ভারতকে পত্র প্রেরণ করা হবে;
৮। পরবর্তীকালে সমজাতীয় পণ্যের চালান আমদানির ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে টীমের সকল সদস্যকে অবহিত করা হয়েছে;
৯। বিসিএসআইআর এর প্রতিবেদনে পণ্যটিকে আমদানিকারকের ঘোষণা অনুযায়ী সোডিয়াম স্টার্চ গ্লাইকোলেট হিসেবে উল্লেখ করা এবং বুয়েট কর্তৃক পণ্য সনাক্তকরণে ব্যর্থ হওয়া সম্বলিত প্রতিবেদনে রাজ স্ব ও জন¯স্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন হওয়া কোন মতেই কাম্য নয়। এ প্রতিবেদনের সাথে প্রতিষ্ঠানগুলোর কোন যোগসাজস আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা ও জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করার অনুরোধ জানিয়ে জাতীয় রাজ¯^ বোর্ডে পত্র প্রেরণ করা হবে।
১০। দেশব্যাপী ও বিশ্বব্যাপী সচেতনতাকল্পে কার্যকরী প্রচারণার লক্ষ যে সকল মিডিয়াকে সম্পৃক্ত করা হয়েছে।
১১। চোরাচালান প্রতিরোধ ও অধিকতর নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে এ বিষয়ে স্থানীয় নিরাপত্তা সংস্থা বিজিবি, র্যাব, পুলিশ ও আনসারকে সম্পৃক্ত করা হয়েছে।

অসাধু তৎপরতা ও ব্যক্তিগত বিষোদগার ঃ খালাসের জন্য অপেক্ষমান ট্রাকে বোঝাই ভায়াগ্রার এ চালানটি তোড়জোড় খালাসের জন্যে অসংখ্য মাধ্যম থেকে নানারকম চাপ অব্যাহত থাকে। অপপ্রভাব, হুমকি, ভয়ভীতি দেখিয়ে ব্যর্থ হয়ে একটি অসাধু চক্র ও তাদের পেছনের মদদদাতারা কাস্টম হাউস ও কমিশনারকে হেনস্থা করার উদ্দেশ্যে ব্যক্তিগত বিষোদগারে লিপ্ত হয়। উল্লেখ্য, বর্তমান কমিশনার মহোদয়ের নিবিড় তত্ত¡াবধানে বাণিজ্য, প্রশাসন ও সেবায় দেশে-বিদেশে প্রশংসিত ও আদর্শ কাস্টম হাউস হিসেবে গড়ে উঠেছে। কতিপয় অসাধু ব্যক্তি ও স্বার্থাণে¦ষী মহল বেনাপোল কাস্টম হাউসকে ব্যর্থ প্রমাণের চেষ্টা করছে। চোরাকারবারীদের সহায়ক শক্তিগুলো সংঘবদ্ধ হয়ে ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়াকে বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ দিয়ে বেনাপোল কাস্টম হাউসের নিবেদিত প্রাণ টীমের মনোবল ক্ষুণœ ও চলমান বাণিজ্য সহজিকরণ কার্যক্রম বন্ধ করার চেষ্টা করছে।

উল্লিখিত বৈশ্বিক ও জাতীয় জনস্বস্থ্যের জন্যে ক্ষতিকর ও গুরুত্বপূর্ণ এ সংবাদটি আপনার বহুল প্রচারিত স্বনামধন্য সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ, প্রদর্শন ও প্রচারের জন্যে বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

(দিপা রাণী হালদার)
সহকারী কমিশনার
কমিশনারের পক্ষে।

প্রাপক,
সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক
বেনাপোল প্রেসক্লাব/বন্দর প্রেসক্লাব/সীমান্ত প্রেসক্লাব,
বেনাপোল, যশোর। আপনি/আপনাদেরকে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিকে বিষয়টি অবহিত করে বর্ণিত সংবাদ (স্থিরচিত্র/ভিডিও ফুটেজ) প্রকাশের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হলো।